ভারতের যে রাজ্যে পা রাখেনি করোনা

ভারত জুড়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা হু হু করে বাড়ছে।দেশটিতে করোনায় আক্রান্তের মোট সংখ্যা এখন ১২ হাজার ছুঁইছুঁই।প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে মারা গেছেন ৩৯২ জন।

করোনার ভয়ে রাজ্যগুলো কাঁপছে। কিন্তু এর মধ্যেই বিষ্ময়কারভাবে এখনো নিজেকে করোনামুক্ত রাখতে পেরেছে উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য সিকি। ভারতের ২৮টি রাজ্য এবং ৮টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মধ্যে একমাত্র সিকিমে এখনো করোনা থাবা বসাতে পারেনি।কিন্তু কোন জাদুবলে নিজেকে করোনামুক্ত রেখেছে সিকিম?

প্রিয় পাঠক,আশা করি-শিগগিরই আমাদের দুঃসময় কেটে যাবে। আবার প্রাণ ফিরে পাবে স্থবির,থমকে যা্‌ওয়া পৃথিবী। আর এই রুদ্ধশ্বাস দিনগুলো ভুলে যেতে যাবো প্রকৃতির কাছে। ভ্রমণ বিষয়ে নানা নির্ভরযোগ্য তথ্যের আপডেট পেতে যুক্ত হোন আমাদের ফেসবুক গ্রুপ অথবা ফ্যানপেজে Thewanderlust/Thewanderlust । ভাল থাকুন।


করোনা মোকাবেলায় সিকিম যে পথ বেছে নিয়েছে, তা বেশ সহজ ও কমন। কিন্তু কাজটি তারা করেছে অনেক আন্তরিকতা দিয়ে। তাতেই সাফল্য পেয়েছে তারা।

ভারতে লকডাউন ঘোষণার বেশ আগে ১৬ মার্চ সিকিমের মুখ্যমন্ত্রী প্রেম সিং তামাং করোনা মোকাবিলায় বিদেশী ও দেশী পর্যটকদের রাজ্যে ঢোকার সব রাস্তা বন্ধ করে দেন।সিল করে দেওয়া হয় বর্ডার। আর ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি ঘোসণা করা হয় রাজ্যের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে।

 

প্রেম সিং রাজ্যের সব মানুষের কাছে একটাই আবেদন করেন, খুব জরুরি প্রয়োজন না হলে যেন কেউ ঘরের বাইরে না যান। পুরো রাজ্য ছিল কোয়ারেন্টাইনে আবদ্ধ। তাই সেখানে এখনও পর্যন্ত একজনও করোনা আক্রান্তের খোঁজ পাওয়া যায়নি। সহজ, সরল টোটকায় কাজ হয়েছে ম্যাজিকের মতো। এখনও পর্যন্ত করোনার ভয়াবহতা অন্য রাজ্যগুলিতে মারাত্মক হলেও সিকিমে প্রাণঘাতী ভাইরাস থাবা বসাতে পারেনি। সারা দেশের প্রায় ৮ শতাংশ ভৌগলিক পরিধি ধরে বিস্তার সিকিমের।আর ভারতের মোট জনসংখ্যার ৪ শতাংশ মানুষ বাস করেন সিকিমে।

অবশ্য শুধু সিকিম নয়,উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় অন্য রাজ্যগুলোর অবস্থাও মোটামুটি ভাল। ভারতের  মহারাষ্ট্র রাজ্যে যেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ২ হাজার ৬৮৭ জন, সেখানে আসামে এখনো তা একশর নিচে আছে। দিল্লীতে যেখানে ১ হাজার ৫৬১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, সেখানে অরুণাচলে আক্রান্ত হয়েছেন মাক্র ১ জন। মনিপুর, মিজোরাম, মেঘালয় ও ত্রিপুরার অবস্থা মোটামুটি একইরকম।

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ প্রদীপ ভৌমিক মনে করেন, সরকারের নেওয়া ব্যবস্থা,কম ঘনবসতি ইত্যাদি বিষয় সিকিমকে নভেল করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণ ঠেকাতে সাহায্য করেছে। প্রসঙ্গত সিকিম ভারতের দ্বিতীয় ক্ষুদ্রতম রাজ্য এবং বিশ্বের প্রথম অরগানিক রাজ্য হিসেবে ঘোষিত হয়েছিল।

এ জাতীয় আরও প্রবন্ধ